কোচ কাম নির্বাচক হচ্ছেন মিসবাহ!

0
64
মিসবাহ উল-হক
মিসবাহ উল-হক

লাহোরে পাকিস্তানের ন্যাশনাল ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে এই মুহূর্তে চলছে ১৭ দিনের জাতীয় ক্যাম্প। মিকি আর্থারের পরবর্তী পাকিস্তান জাতীয় দলের কোচ কে হবেন সে বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি এখনো। তবে চলতি জাতীয় ক্যাম্পে সরফরাজদের ফিটনেস দেখভালের বিষয়ে তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে পিসিবি নিয়োগ করেছে সাবেক অধিনায়ক মিসবাহ উল-হককে। অর্থাৎ ১৭ দিনের ক্যাম্পে কার্যত পাকিস্তানের হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মিসবাহ।

এবার পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড চাইছে মিকি আর্থারের ছেড়ে যাওয়া জুতায় পাকাপাকিভাবে পা গলাক মিসবাহ। অর্থাৎ দেশের সবচেয়ে সফল টেস্ট অধিনায়ক মিসবাহকেই জাতীয় দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব তুলে দিতে উৎসাহী পিসিবি। এখানেই শেষ নয়, প্রধান কোচের পাশাপাশি নির্বাচক প্রধান হিসেবেও মিসবাহকে প্রথম পছন্দ সেদেশের ক্রিকেট বোর্ডের। তবে এহেন গুরুদায়িত্ব গ্রহণের বিষয়ে মিসবার বেঁকে বসার সম্ভাবনা প্রবল।

সূত্রের খবর, লাহোরে জাতীয় ক্যাম্পের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণেও প্রথমে রাজি ছিলেন না মিসবাহ। রিহ্যাবের পরিবর্তে বোর্ডের চুক্তিবদ্ধ বেশ কিছু ক্রিকেটার চোট লুকিয়ে বিদেশের টি২০ লিগে দাপিয়ে খেলে বেড়ানোর কারণে ক্ষুব্ধ ছিলেন সাবেক পাকিস্তানি অধিনায়ক। তবে বোর্ডের অন্যতম মুখ জাকির খানের সহায়তেয় শেষমেষ তাকে শেষমেষ রাজি করানো সম্ভব হয় বলে জানা গিয়েছে।

পিটিআই সূত্রে বলা হয়েছে, ‘ফকর জামান এবং বাবর আজমের মতো ক্রিকেটাররা যে ফিটনেস সমস্যায় জর্জরিত সেকথা ভালোই জানতেন মিসবাহ। তাই সাবেক অধিনায়কের কথায় বিদেশি টি২০ লিগে খেলার ছাড়পত্র দেয়ার পরিবর্তে পিসিবি’র উচিৎ ছিল তাদের রিহ্যাবের বন্দোবস্ত করা।’

নেট সেশনে বিশেষ বিশ্বাসী নন মিসবাহ। প্রতিযোগীতামূলক ম্যাচের মধ্যে দিয়েই টিম কম্বিনেশন গড়ে তোলায় বিশ্বাসী সাবেক পাকিস্তানি অধিনায়ক তাই কোচের পদে এখনো আবেদন না করলেও আগামী দিনে মিসবাহ আবেদন করবেন বলেই আশা করা হচ্ছে। আগামী ২৩ আগস্ট কোচের পদে আবেদনের শেষ দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here